• FEATURE,  TRAVEL DIARY

    যেমন দেখেছি অমর একুশে বইমেলা | রেজা তানভীর

    ২১ শে ফেব্রুয়ারী সকাল বেলা এনা পরিবহনে করে মীরসরাই হতে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হই।ঢাকা পৌঁছাতে প্রায় বিকেল তিনটা বেজে যায়। অামরা অাজিমপুরে খালার বাসায় যখন উঠি তখন বিকেল চারটা।দুপুরের ভাত খেতে হয় প্রায় চারটার পরে।বিকালে কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে সন্ধ্যায় বের হই অমর একুশে বই মেলার পথে। এর অাগে সায়েদাবাদ থেকে যখন অাজিমপুর যাচ্ছিলাম তখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা একুশে ফেব্রুয়ারীর অামেজে ভরপুর।সবার হাতে খোপায় ফুল শোভা পাচ্ছে।ছেলে মেয়েরা বিভিন্ন বর্ণমেলা শোভিত সাদা কালো পোশাক পরে দলবেঁধে ঢাকার রাস্তায় হাঁটছেন। সন্ধ্যার পর অাজিমপুর থেকে রিকশাযোগে বাংলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত বইমেলার দিকে যখন রওনা হই তখন রাস্তায় ছিল প্রচুর জ্যাম।দলে দলে লোকজন বইমেলার দিকে যাচ্ছে।দিনটি ২১ শে ফেব্রুয়ারী হওয়ার কারণে টিএসসি পলাশী…

  • TRAVEL DIARY

    আমার দেখা তামিলনাড়ু রাজ্য | রেজা তানভীর

    ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রদেশ তামিলনাড়ু।সেখানে যাওয়ার সৌভাগ্য আমার হয়েছিল। তামিলনাড়ু রাজ্যের প্রধান রাজধানী হচ্ছে চেন্নাই। চেন্নাইয়ের পূর্ব নাম মাদ্রাজ। মাদ্রাজ নামটি পরিবর্তিত হয়ে এখন চেন্নাই নাম ধারণ করেছে।আমরা যে শহরটিতে ছিলাম সেটি হচ্ছে ভেলোর।ভেলোর হচ্ছে তামিলনাড়ু রাজ্যের একটা জেলা। আমরা ৪ জন কলকাতার হাওড়া রেলষ্টেশন থেকে রওয়ানা দিলাম।প্রায় ৩০ ঘন্টা ট্রেন ভ্রমন শেষে আমরা পৌছুলাম ভেলোরে।ভোলোরের সাধারন মানুষ হিন্দি বলতে পারেনা।যারা শুধুমাত্র পড়াশোনা করেছে এবং শিক্ষিত তারাই শুধুমাত্র হিন্দি বলতে পারে।আমরা সাধারন মুদি দোকানী বা ফল বিক্রেতাদের সাথে কথা বলতে খুব কষ্ট হতো কারন তারা শুধু তামিল বলতে পারে, হিন্দি বুঝতে বা বলতে পারেনা। ভেলোরে ফলের দাম খুবই সস্তা, মাত্র ১০ বা ১২ রুপি দিয়ে বড় একটা পেঁপে বা…

  • CREATIVE WRITING,  TRAVEL DIARY

    ঘুরে এলাম কক্সবাজার | রেজা তানভীর

    ছোটবেলায় বাবা মায়ের সাথে একবার কক্সবাজার গিয়েছিলাম।সেটি আরো ৫ বছর আগে।এখন বড়বেলায় (আমার ভাষায়) সাধ জেগেছিল আরো একবার ঘুরে আসি সমুদ্র সৈকতের বেলাভূমি থেকে। যথারীতি চট্টগ্রাম শহর হতে আমি আর আমার বন্ধু চট্টগ্রাম শহর হতে কক্সবাজারের দিকে রওয়ানা হলাম।শহরে নেমেই থাকার জন্য আমরা কলাতলীতে হোটেলে বুকিং দিলাম।সমুদ্র সৈকতে বীচের অপরূপ দৃশ্য দেখে আমরা মুগ্ধ, রাতের বীচ তো এককথায় অসাধারন।রাতে বীচের পাশে বসে আমরা অনেক আড্ডা দিয়েছি।সমুদ্রের বিশাল গর্জন, উন্মত্ত ঢেউ চমৎকারভাবে উপভোগ করেছি।দিনের বেলায় ছিল সমুদ্রের পানিতে গোসল করার উপযুক্ত সময়।সেটিও মিস করিনি,ঢেউয়ের সাথে তাল মিলিয়ে সাঁতার কাটা ছিল সেই রকম।দেখা হল শহরের বার্মিজ মার্কেট,বার্মিজ মার্কেটের আচার ছিল সেই মানের সুস্বাদু তাছাড়া বাদাম তো আছেই।কিনে ফেললাম কয়েক প্যাকেট আচার আর…