প্রযুক্তিগত দিক থেকে বিশ্বের সেরা পাঁচটি উন্নত শহর

একবিংশ শতাব্দীতে প্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রয়োগ অন্য যে কোন সময়ের থেকে বেশী। সে কারণে ধরেই নেওয়া যায়, যে দেশের প্রযুক্তি যত উন্নত, সে দেশ অর্থনৈতিক দিক থেকেও তত উন্নত হবে। আশ্চর্যজনক হলে সত্য যে, ইউরোপ কিংবা আমেরিকার শহরগুলোকে ছাপিয়ে সারা বিশ্বের উন্নত শহরগুলোর তালিকায় উঠে এসেছে এশিয়ার কিছু শহর, যা কিনা কয়েক দশক আগেও অকল্পনীয় ছিল। এমন কিছু শহরের পরিচিতিই এখানে দেয়া হল, যারা কিনা প্রযুক্তির ব্যাবহারে অন্যান্য যে কোন শহরের থেকে কয়েক ধাপ এগিয়ে। অবশ্য এর পেছনে কারণও অনেক সুনির্দিস্ট।

৫. তাইপেই – তাইওয়ান

তাইওয়ান (রাজধানী তাইপেই) প্রযুক্তির দিক বিশ্বের দ্রুততম উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে একটি। এর অন্যতম কারণ দেশটির উচ্চগতিসম্পন্ন ইন্টারনেট। তাইওয়ানের গড় ইন্টারনেট স্পীড ১ জিবিপিএস। এই উচ্চগতিসম্পন্ন ইন্টারনেট তাইপেইকে অর্থনৈতিক উন্নতির পথে নিয়ে যাচ্ছে। নির্মানখাত, গেমিং এবং ব্যবসায় খাতে উন্নতির পেছনে তাইপের ইন্টারনেট স্পীডই মুখ্য ভুমিকা পালন করছে।

উন্নত শহর
তাইওয়ানের রাজধানী তাইপে

৪. সিওল – দক্ষিন কোরিয়া

সিওল এমন একটি শহর, যার অধিকাংশ মানুষ কাজ করে হাই টেক কোম্পানী গুলোতে। যার কারণে দক্ষিন কোরিয়ার মুল আয়ের অধিকাংশই আসে এই শহর থেকে।  এই শহরে স্যামসং, হুন্দাই এর মত অনেক বড় বড় কিছু প্রতিষ্ঠানের হেডকোয়ার্টার অবস্থিত।

উন্নত শহর
সিওল, দক্ষিন কোরিয়া

৩. সিঙ্গাপুর সিটি – সিঙ্গাপুর

এখন পর্যন্ত এই তালিকায় যে এশিয়ার শহর গুলো আছে, সিঙ্গাপুর তাদের মধ্যে একধাপ এগিয়ে সমগ্র বিশ্বে তৃতীয়। মাত্র ৪০ বর্গকিলোমিটারের ছোট এই দেশে প্রতিটি বাড়ি তৈরী করা হয় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করে, অধিকাংশ দোকান ইন্টারনেটের সঙ্গে সংযুক্ত, এবং স্থাপত্যগত দিক থেকে উন্নত অনেক স্থাপনা ও উঁচু ভবনের ঠিকানা এই শহরে। মেরিনা বে স্যান্ড এবং গার্ডেন বাই দ্যা বে এমনই দুটি স্থাপনা।

উন্নত শহর
সিঙ্গাপুর সিটি, সিঙ্গাপুর

২. সিলিকন ভ্যালি – আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র

তথ্যপ্রযুক্তির সূতিকাগার হিসেবে পরিচিত সিলিকন ভ্যালি বিশ্বব্যাপী উন্নত শহরগুলোর তালিকায় সবার উপড়ে থাকবে- এটাই অনুমেয় হলে আদতে তা নয়। আইটি বিশ্বের নেতৃত্ব দেয়া সিলিকন ভ্যালি বিশ্বের সর্বাধুনিক শহরগুলোর তালিকায় বেশ উপরেই আছে। আপনি যে টেক কোম্পানীর কথাই চিন্তা করেন না কেন, তাদের প্রায় সবাই এখানকার। এপল, মাইক্রসফট, ফেসবুক, গুগল- এদের সবার হেডকোয়ার্টার এখানে।

উন্নত শহর
সিলিকন ভ্যালি, যুক্তরাষ্ট্র

১. টোকিও – জাপান

এক কথায়, জাপানের রাজধানী টোকিও প্রযুক্তিগত দিক থেকে বিশ্বের এক নম্বর সিটি।

কেউ যখন শহরে আসবে, তখন এখানে এমন অনেক টেকনোলজিই দেখতে পাবে যা বাইরের দুনিয়ার কাছে এখনো অজানা! সর্বশেষ দ্রুততম ট্রেন সিস্টেম থেকে শুরু করে স্মার্টফোনের প্রযুক্তি, রোবোটিক্স এবং এমনকি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সর্বাধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ আপনি এখানে দেখতে পাবেন।  যদি আপনি ভবিষ্যতে একটি শহর মনে করতে পারেন যারা প্রযুক্তি দিয়ে পরিচালিত, টোকিও অবশ্যই সেখানে নেতৃত্বে দেবে।

উন্নত শহর
টোকিও, জাপান

তবে উন্নত হওয়ার পাশাপাশি এই শহরগুলোতে বসবাসের যে কিছু অসুবিধে নেই- তা নয়। এর মধ্যে প্রতিটি শহরেই যে এক ও অভিন্ন সমস্যাটি রয়েছে, তা হলো অর্থনৈতিক বিষয়টি। জীবনযাত্রার উন্নতমানের সাথে সাথেই প্রায় অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে এই শহরগুলো একই সাথে বসবাসের জন্য পৃথিবীর সবচেয়ে খরুচে শহরের তালিকাতেও উপরের অবস্থানগুলো দখল করে আছে, যা প্রায় সারাবছরের জন্যই এসব শহরের অধিবাসীদের জন্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

Use Facebook to Comment on this Post