বাবা দিবস কেন পালন করা হয়?

প্রতি বছর জুনের তৃতীয় রোববার বাবা দিবস হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। আগে পাশ্চাত্যে এর প্রচলন দেখা গেলেও বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাবা দিবস পালন হয়ে থাকে। বলা হয়ে থাকে সন্তান ও বাবার সম্পর্ক আরো জোরালো করার জন্য এই উৎসবটি পালন করে পশ্চিমারা। তবে কোথা থেকে এই বাবা দিবসের প্রচলন কেন পালন করা হচ্ছে এইসব বিষয়ে বিস্তারিত কিছু না জেনেই আমরা মূলত বাবা দিবস পালন করে থাকি। আবার বাবার ভালবাসার জন্য একটি দিন কেন হবে এ নিয়েও আছে আবার নানা বিতর্ক। তাহলে জেনে নেয়া যাক বাবা দিবস পালন এর কারণ এবং উৎস।

সাধারণত জুনের তৃতীয় রোববার বাবা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যের মতো বিশ্বের আরো কিছু দেশ বেশ ঘটা করে দিবসটি পালন করে থাকে। কিন্তু বাবা দিবস পালন করা তারিখ নিয়ে দেশভেদে কিছু হেরফের আছে। যেমন ইতালি ও স্পেন বাবা দিবস হিসেবে ১৯ মার্চকে বেছে নিয়েছে। ওদিকে ইউক্রেন সেপ্টেম্বরের তৃতীয় রোববারকে বেঁছে নিয়েছে এবং ইন্দোনেশিয়ায় বাবা দিবস ১২ নভেম্বর। আর বিভিন্ন দেশে বাবা দিবস বিভিন্ন দিনে পালন করার কারণে গুগল থেকে বাবা দিবস নিয়ে কোন ডুডল করা হয়নি। এদিকে একমাত্র জাপান, ভারত ও কলোম্বিয়া যুক্তরাজ্যের নির্বাচিত তারিখ অনুসারে বাবা দিবস পালন করে।

আমেরিকার ঐতিহ্যে বাবা দিবস নিয়ে একটি গল্প প্রচলিত আছে। তাহলো ভার্জিনিয়ার একটি গ্রামে গ্রেস গোল্ডেন নামে একজন নারী বাস করতেন। তিনি অনাথ ছিলেন। ১৯০৮ সালে তিনি মেথোডিষ্ট মিনিষ্টারকে চার্চে ফাদার হিসেবে নিয়োগ দিলেন। সেই সময় ভার্জিনিয়াতে একটি গ্রামের দ্বন্দের রেশ ধরে সেই গ্রামের ৩৬২ জন স্থানীয় পুরুষকে মেরে ফেলা হয়। সেই ঘটনায় বিধবা হয় ২৫০ জন নারী আর পিতৃহারা হয় এক হাজার সন্তান। তখন সেই ফাদারকে চার্চের ফাদার করে আনা হয় যিনি এই অনাথ শিশুদের বাবার মতো ভালোবাসবে। আর সেই দিনটিকেই বাবা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

এদিকে ১৯১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস রাষ্ট্রীয়ভাবে জুনের তৃতীয় রোববারকে বাবা দিবস হিসেবে ঘোষণা দেয়। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ক্যালভিন কোলিজ সবাইকে আবেদন করে জাতীয়ভাবে বাবা দিবস পালন করার জন্য যদিও এর জন্য কারো ওপর কোন জোর করা হবে না। ১৯৭২ সালে প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিয়নের সময় বাবা দিবস জুনের তৃতীয় রোববার পালন করার জন্য একটি আইন পাশ করানো হয়। আর এরপর থেকেই দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় রোববার বাবা দিবস হয়ে আসছে।

Use Facebook to Comment on this Post